ব্রেকিং নিউজ

রাত ৮:৩২ ঢাকা, মঙ্গলবার  ২৫শে সেপ্টেম্বর ২০১৮ ইং

অসহযোগের ইঙ্গিত ২০ দলীয় জোটের

Like & Share করে অন্যকে জানার সুযোগ দিতে পারেন। দ্রুত সংবাদ পেতে sheershamedia.com এর Page এ Like দিয়ে অ্যাক্টিভ থাকতে পারেন।

 

চলমান হরতাল, অবরোধ কর্মসূচির পাশাপাশি আইন অমান্য ও অসহযোগ আন্দোলন কর্মসূচি ঘোষণার ইঙ্গিত দিয়েছে বিএনপি নেতৃত্বাধীন ২০ দলীয় জোট। বিএনপির যুগ্ম-মহাসচিব সালাহউদ্দিন আহমেদ শুক্রবার বিকেলে গণমাধ্যমে পাঠানো এক বিবৃতিতে নতুন এ কর্মসূচির ইঙ্গিত দেন।
সালাহ উদ্দিন আহমেদ বলেছেন, অবৈধ, অনির্বাচিত, দখলবাজ আওয়ামী সরকার রাষ্ট্রশক্তির চূড়ান্ত অপব্যবহারের মাধ্যমে বাংলাদেশ নামের এই জনপদকে অবরুদ্ধ করে রেখেছে। অবৈধ সরকারের এহেন শ্বেতসন্ত্রাসের বিরুদ্ধে প্রতিবাদমুখর জনগণ অচিরেই আইন অমান্য ও অসহযোগ আন্দোলন শুরু করতে বাধ্য হবে।
বিএনপির যুগ্ম মহাসচিব বলেন, ইদানিং আওয়ামী নেতা-মন্ত্রীরা প্রকাশ্য জনসমাবেশে আন্দোলনকারীদের এনকাউন্টার এবং ক্রসফায়ারে হত্যা করার প্রকাশ্য ঘোষণা দিয়ে যাচ্ছেন। আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর বড় কর্তারাও প্রকাশ্যে সভা-সমিতি করে ক্রসফায়ারে হত্যার কৃতিত্ব দাবি করে বেড়াচ্ছেন। এসব বিকৃত মস্তিস্কের নেতা-মন্ত্রী ও পুলিশ কর্মকর্তাদের ভবিষ্যত পরিণতি গণকারফিউ এবং গণপিটুনিতে নির্ধারিত হওয়ার সমূহ সম্ভাবনাকে উড়িয়ে দেয়া যায় না।
তিনি বলেন, সরকার হত্যা-নির্যাতনের উন্মত্ততায় মূলত জনগণকে আতঙ্কিত করে তুলে রাষ্ট্রক্ষমতা দীর্ঘায়িত করতে চায়। বিরোধী দলের নেতাকর্মীসহ নির্বিচারে মানুষ হত্যা, গুম, অপহরণ ও গণগ্রেফতার করে সরকার মূলত নিজের নিরাপদ অবতরণের পথকেই ক্রমশ সংকুচিত করে যাচ্ছে।
প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে উদ্দেশ্য করে বিএনপির যুগ্ম-মহাসচিব সালাহউদ্দিন আহমেদ বলেন, এখনও সময় আছে, ফ্যাসিবাদী একদলীয় রাষ্ট্রব্যবস্থা কায়েমের উন্মাদনা ও ব্যর্থ প্রচেষ্টা থেকে সরে এসে গণদাবি মেনে নিয়ে দ্রুত পদত্যাগ করুন। দেশে প্রকৃত গণতান্ত্রিক শাসন ব্যবস্থা পুনঃপ্রতিষ্ঠায় সহযোগিতা করুন।
বিবৃতিতে সালাহ উদ্দিন আরো বলেন, কয়েকদিন আগে পুলিশ ক্রসফায়ারে হত্যা করে ছাত্রদল নেতা নুরুজ্জামান জনিকে। তাকে হত্যা করেও ক্ষ্যান্ত হয়নি, এবার তার পিতা-মাতা-অন্তঃসত্ত্বা স্ত্রী ও শ্বাশুড়িকে পুলিশ গ্রেফতার করেছে। গ্রেফতার করা হয়েছে ছাত্রদল নেত্রী নিশিতাকে। তাদের অপরাধ তারা দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়ার সঙ্গে সাক্ষাৎ করতে এসেছিলেন। ইতোপূর্বে গ্রেফতার করা হয়েছে গাজীপুরের সিটি মেয়র ও বিএনপি চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা অধ্যাপক আবদুল মান্নানকে। আমরা এ জাতীয় বেআইনি ও ঘৃণ্য গ্রেফতারের তীব্র নিন্দা, প্রতিবাদ এবং তাদের নিঃশর্ত মুক্তি দাবি করছি।

Leave a Reply