শীর্ষ মিডিয়া

ব্রেকিং নিউজ

রাত ৯:২০ ঢাকা, বৃহস্পতিবার  ১৭ই জানুয়ারি ২০১৯ ইং

অসম্প্রদায়িক বাংলাদেশ বিনির্মাণে বেতার সহযাত্রী

তথ্যমন্ত্রী হাসানুল হক ইনু বলেছেন, বর্তমান সরকার সমৃদ্ধ বাংলাদেশ প্রতিষ্ঠার যে অঙ্গীকার নিয়ে সামনের দিকে এগিয়ে যাচ্ছে, সেখানে বেতার দারিদ্র্যমুক্ত, শোষণমুক্ত ও অসম্প্রদায়িক বাংলাদেশ বিনির্মাণের সহযাত্রী।
তিনি বলেন, একাত্তরের স্মরণীয় ভূমিকার জন্য বাংলাদেশ বেতার মানুষের হৃদয়ে অবস্থান করবে আজীবন।
আজ সকালে রাজধানীর শাহবাগস্থ বেতার ভবন প্রাঙ্গণে বাংলাদেশ বেতারের হীরক জয়ন্তি (৭৫ বছর পূর্তি) উপলক্ষে বেলুন উড়িয়ে শোভাযাত্রা উদ্বোধনকালে তিনি এসব কথা বলেন।
তথ্যমন্ত্রী বলেন, মুক্তিবাহিনীর লড়াইয়ে হানাদারদের ঘায়েল করতে স্বাধীন বাংলা বেতার কেন্দ্রের ভূমিকা অনন্য। মহান মুক্তিযুদ্ধে স্বাধীন বাংলা বেতারকেন্দ্র মুক্তিকামী মানুষকে যেমন স্বাধীনতায় উদ্বুদ্ধ ও উজ্জীবিত করেছে তেমনি দিক-নির্দেশনা দিয়ে প্রেরণাও যুগিয়েছে।
তিনি বলেন, পরাধীন পাকিস্তান আমলেও সকল রক্তচক্ষু উপেক্ষা করে এই বেতার বাঙালির সংস্কৃতি, ইতিহাস ও ঐতিহ্য রক্ষা করে অনুষ্ঠান সম্প্রচার করেছে।
পরে শোভাযাত্রায় অন্যান্যদের মধ্যে তথ্যসচিব মরতুজা আহমদ, বেতারের মহাপরিচালক কাজী আক্তার উদ্দীন আহমদ, মন্ত্রণালয়ের যুগ্মসচিব আবুল হোসেন, নাসির উদ্দীন আহমেদসহ বাংলাদেশ বেতারের সকল স্তরের কর্মকর্তা, কর্মচারী এবং কলা-কুশলী ও শিল্পীরা অংশগ্রহণ করেন।
তথ্যমন্ত্রী বলেন, পরাধীন আমলে বেতারের যাত্রা শুরু হলেও পঁচাত্তর বছর পর্যন্ত বেতার আমাদের সংস্কৃতি ও ঐতিহ্য রক্ষা ও লালন করে চলেছে।
তিনি বলেন, বাংলাদেশ বেতারের প্রয়োজন এখনও ফুরিয়ে যায়নি। বর্তমানে মোবাইল ফোনের কল্যাণে সকলের হাতের মুঠোয় বেতার পৌঁছে গেছে। বেতার আগে যেমন জনগণের পক্ষে ছিল, আগামীতেও তেমনি জনগণের পক্ষে থেকে শোষণমুক্ত ও অসাম্প্রদায়িক বাংলাদেশ প্রতিষ্ঠায় ভূমিকা রাখবে।
মন্ত্রী শোভাযাত্রা উদ্বোধনকালে বেতারের ৭৫ বছরের পথচলায় যাদের হাত ধরে এগিয়ে গিয়েছে তাদের স্মরণ করেন এবং এখনও যারা বেতারের সঙ্গে সম্পৃক্ত থেকে বাংলাদেশকে এগিয়ে নিয়ে যাচ্ছেন, তাদের ধন্যবাদ জানান এবং বলেন, বেতার হচ্ছে আমাদের অন্যতম প্রাচীন গণমাধ্যম।
শোভাযাত্রাটি শাহবাগ বেতার ভবন থেকে শুরু হয়ে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের টিএসসি ঘুরে শাহবাগে এসে শেষ হয়। বিভিন্ন রঙ ও আকারের বেলুন, ফেস্টুন ও ঘোড়ার গাড়ি শোভাযাত্রার সৌন্দর্য বাড়িয়ে দিয়েছে কয়েকগুণ।
আজ বিকেলে আগারগাঁওস্থ বেতার ভবনে প্রধানমন্ত্রী ১৫ ডিসেম্বর থেকে ১৮ ডিসেম্বর পর্যন্ত ৪ দিনব্যাপী হীরক জয়ন্তি অনুষ্ঠানের উদ্বোধন করবেন।