Sheersha Media

ব্রেকিং নিউজ

সকাল ১০:৪৮ ঢাকা, সোমবার  ১৯শে নভেম্বর ২০১৮ ইং

প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী
প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী, ফাইল ফটো

অসংযত লেখালেখি’ চলবে না, মিডিয়াকে-মোদী

এনডি টিভি’র সম্প্রচার এক দিনের জন্য বন্ধ করে দেওয়ার ফতোয়া জারি করে কেন্দ্রীয় সরকার বুঝিয়ে দিয়েছিল, শুরুটা কখন করতে হয়, তারা জানে না!

আর আজ, বুধবার দিল্লিতে ন্যাশনাল প্রেস ডে’র এক অনুষ্ঠানে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী যা বললেন, তার মর্মার্থ, কোথায় শেষ করতে হয়, থামতে হয়, সেটা সাংবাদিকরা জানেন না!

তাই জোর গলায় সংবাদমাধ্যমের স্বাধীনতার স্বপক্ষে সওয়াল করেও এ দিন ‘অসংযত লেখালেখি’র জন্য সাংবাদিকদের কিছুটা যেন সতর্কও করে দিলেন প্রধানমন্ত্রী। যেন পরোক্ষে বলতে চাইলেন, সাংবাদিকদের ‘অসংযত লেখালেখি’ই সরকারে ‘অসহিষ্ণুতা’র কারণ হয়ে উঠতে পারে!

প্রধানমন্ত্রী অবশ্য এও বলেছেন, তিনি ‘বাইরে থেকে সংবাদমাধ্যমের ওপর নিয়ন্ত্রণে’রও চরম বিরোধী। প্রধানমন্ত্রী মোদীর কথায়, ‘‘স্বাধীনতা, বাক স্বাধীনতার ভীষণ প্রয়োজন। কিন্তু তারও একটী সীমা থাকা উচিত। মা যেমন তার শিশুকে বেশি খেতে বারণ করেন, বদহজম হবে বলে, ঠিক তেমনটাই।’’

সংবাদমাধ্যমের ‘অসংযত লেখালেখি’ নিয়ে যে তিনিই প্রথম মুখ খুলছেন না, তা বোঝাতে গিয়ে ‘জাতির জনক’ মহাত্মা গাঁধীরও প্রসঙ্গ টেনে আনেন প্রধানমন্ত্রী মোদী। বলেন, ‘‘মহাত্মা গাঁধী বলতেন, অসংযত লেখালেখি ভয়াবহ সমস্যার জন্ম দিতে পারে। তবে সংবাদমাধ্যমকে বাইরে থেকে নিয়ন্ত্রণ করার কথা কল্পনাও করা উচিত নয়। তবে সময়ের সঙ্গে সঙ্গে সংবাদমাধ্যমকেও তার কাজকর্মের ধরন কিছুটা বদলাতে হবে।’’

বিহারে সম্প্রতি দুই সাংবাদিক খুনের ঘটনা নিয়ে তাঁর প্রতিক্রিয়া জানাতে গিয়ে প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘‘যে কোনও মৃত্যুর ঘটনাই দুঃখজনক। তবে এটা আরও বেশি দুঃখজনক যে, সত্য উদ্ঘাটনের জন্য সাংবাদিকদের প্রাণ হারাতে হচ্ছে।’’ আনন্দবাজার