Press "Enter" to skip to content

অবৈধ সম্পদ: সাসপেন্ডেড ডিআইজি মিজানুর গ্রেফতার

পুলিশের সাময়িক বরখাস্তকৃত ডিআইজি মিজানুর রহমান অবৈধ সম্পদের মামলায় আগাম জামিন চেয়ে আনা আবেদন হাইকোর্ট আজ নাকচ করে দিয়ে দিয়ে তাকে গ্রেফতারে নির্দেশ দেন। এরপর তাকে পুলিশী হেফাজতে নেয়া হয়।

বিচারপতি ওবায়দুল হাসান ও বিচারপতি এস এম কুদ্দুস জামান সমন্বয়ে গঠিত একটি হাইকোর্ট বেঞ্চে আজ এ আবেদনের ওপর শুনানি হয়। শুনানিকালে সাময়িক বরখাস্তকৃত ডিআইজি মিজানুর রহমান পুলিশের ভাবমূর্তি ও সুনাম ক্ষুন্ন করেছেন বলে মন্তব্য করেন। তার জামিন আবেদন নাকচ করে দিয়ে তাকে এখনি গ্রেফতারে নির্দেশ দেয়া হয়। এরপর তাকে পুলিশী হেফাজতে নেয়া হয়।

জামিন আবেদনের শুনানি করেন এডভোকেট মমতাজ আহমেদ মেহেদী। আবেদনের বিরোধী করেন দুদকের আইনজীবী খুরশীদ আলম খান। দুপুর আড়াইটার দিকে আগাম জামিন নিতে আদালতে উপস্থিত হন মিজান।

এই পুলিশ কর্মকর্তা এবং তার স্ত্রীসহ স্বজনদের বিরুদ্ধে গত ২৪ জুন মামলা দয়ের করে দুদকের পরিচালক মনজুর মোরশেদ। এ মামলায় দুদকের সমন্বিত জেলা কার্যালয় ঢাকা -১ এ দায়ের করা এ মামলায় তিন কোটি সাত লাখ ৫ হাজার ২১ টাকার সম্পদের তথ্য গোপন এবং তিন কোটি ২৮ লাখ ৬৮ হাজার টাকার অবৈধ সম্পদ অর্জনের অভিযোগ আনা হয়েছে। ডিআইজি মিজানুর রহমানের পাশাপাশি তার স্ত্রী সোহেলিয়া আনার রত্না, ভাগ্নে পুলিশের এসআই মাহমুদুল হাসান এবং ছোট ভাই মাহবুবুর রহমানকে এ মামলায় আসামি করা হয়েছে।

শেয়ার অপশন: