Sheersha Media

ব্রেকিং নিউজ

দুপুর ১:৩৪ ঢাকা, রবিবার  ১৮ই নভেম্বর ২০১৮ ইং

ফাইল ফটো

অবরোধ-হরতালে বিচ্ছিন্ন রাজধানী

অবরোধ ও হরতালে সারাদেশ থেকে বিচ্ছিন্ন হয়ে পড়েছে রাজধানী ঢাকা। টানা সপ্তম দিনের অবরোধ এবং অবরোধের এই সময়ে দেশের একাধিক জেলায় কোন না কোন দিন হরতাল চলছে। এরই মধ্যে ঢাকার আশেপাশের ১৫ জেলায় আজ সোমবারের হরতালের কারণে সারাদেশ থেকে রাজধানী ঢাকা বিচ্ছিন্ন হয়ে পড়েছে।
অবরোধ-হরতালে দূরপাল্লার যান চলাচল বন্ধ রয়েছে। মাঝে মধ্যে পন্য ও যাত্রীবাহী কিছু যান আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর পাহারায় চালাতে গিয়েও অবরোধকারীদের প্রতিরোধের মুখে পড়েছে। দুর্বৃত্তদের হামলা-অগ্নিসংযোগে ইতিমধ্যে কয়েকজন চালক ও যাত্রী প্রাণ হারিয়েছে।
এতে আইন-শৃঙখলা বাহিনীর পাহারায় যান চলাচলও সীমিত হয়ে আসছে। ফলে যাত্রীবাহী বাস ও পন্যবাহী যানগুলো গত কয়েকদিন ধরে বিভিন্ন স্থানে আটকা পড়ে আছে। এতে কৃষক, উৎপাদনকারী শিল্প প্রতিষ্ঠান মালিক ও ব্যবসায়ীদের উদ্বেগ বাড়ছে। ইতোমধ্যে ব্যবসায়ীদের শীর্ষ প্রতিষ্ঠান এফবিসিসিআই রাজনৈতিক এমন অচলাবস্থার বিরুদ্ধে উদ্বেগ জানিয়ে আইনের আশ্রয় নেয়ার হুঁশিয়ারিও দিয়েছে।
এদিকে গত সপ্তাহে বাস মালিক-শ্রমিকদের নিয়ে আইন-শৃঙ্খলা কমিটির সভায় দূরপাল্লার যান চলাচলের সিদ্ধান্ত হয়। ওই সভায় স্বরাষ্ট্রপ্রতিমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল ঘোষণা দেন অবরোধে চলতে গিয়ে ক্ষতিগ্রস্ত যানবাহনের ক্ষতি পূরণ দেবে সরকার।
এ ঘোষণার পরও তেমন সাড়া মেলেনি। একাধিক শ্রমিক জানিয়েছে, যানবাহনের ক্ষতিপূরণ দেয়ার কথা বলা হলেও শ্রমিকদের ব্যাপারে কোন সিদ্ধান্ত নেয়া হয়নি। এই কারণে অধিকাংশ শ্রমিক অবরোধ-হরতালে ঝুঁকি নিয়ে যানবাহনে তাদের দায়িত্ব পালন করতে রাজি নয়।

এদিকে গত কয়েকদিনের অবরোধে রাজধানী ঢাকাসহ কয়েকটি বিভাগীয় শহরের অভ্যন্তরীণ সড়কে যান চলাচল মোটামুটি স্বাভাবিক ছিল। কিন্তু আস্তে আস্তে ওইসব মহানগরগুলোরও যান চলাচল কমে আসছে।
কারণ হিসেবে জানা গেছে, দিন দিন যানবাহনগুলোতে দুর্বৃত্তদের চোরাগোপ্তা হামলা বাড়ছে। এতে আতঙ্ক থাকায় অনেকেই ভারি যানবাহন এড়িয়ে হালকা যানে চলাচল করছে।
অপরদিকে গত ২/৩ দিন রেলে নাশকতা বৃদ্ধি পাওয়ায় রাজধানীর ঢাকার সাথে দেশের অন্যান্য জেলার সঙ্গে ট্রেনের শিডিউলে বিপর্যয় দেখা দিয়েছে। সময় মতো ট্রেন ছাড়া ও ঢাকায় প্রবেশ করছে না।
কমলাপুর স্টেশন ম্যানেজার গণমাধ্যমকে জানান, ঘন কুয়াশা ও রেল লাইনে নাশকতার কারণে ট্রেনের শিডিউল বিপর্যয়ে পড়েছে।
অপরদিকে সদরঘাটে লঞ্চ চলাচলও কমে গেছে। শ্রমিক রিয়াদ হাসান জানান, যাত্রী কম থাকায় সদরঘাট থেকে দক্ষিণাঞ্চলে এবং দক্ষিণাঞ্চল থেকে ঢাকায় সারাদিনে ৭/৮টি লঞ্চ চলাচল করছে।
গত সাতদিনের লাগাতার অবরোধ ও দেশের বিভিন্ন এলাকায় কোন না কোন দিন হরতালে কার্যত রাজধানী ঢাকা সারা দেশ থেকে বিচ্ছিন্ন হয়ে পড়েছে।
এদিকে বিএনপি নেতৃত্বাধীন ২০ দলের নেতারা অবরুদ্ধ বিএনপি চেয়ারপার্সন বেগম খালেদা জিয়ার সাথে দেখা করার পর অবরোধ কর্মসূচি অব্যাহত রাখার ঘোষণা দেন। এ অবস্থায় উদ্বেগ-অনিশ্চয়তা থেকে আপতত: মুক্তি পাচ্ছে না দেশের মানুষ।