ব্রেকিং নিউজ

রাত ৩:৩৩ ঢাকা, বুধবার  ১৯শে সেপ্টেম্বর ২০১৮ ইং

অধ্যাপক ইউনুস হত্যা: মৃত্যুদণ্ডের পরিবর্তে ২ জেএমবির যাবজ্জীবন কারাদণ্ড

রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের অর্থনীতি বিভাগের অধ্যাপক ড. ইউনুস হত্যা মামলার পুনঃবিচারে জেএমবির ২ সদস্যের যাবজ্জীবন কারাদণ্ড দিয়েছেন আদালত।

বুধবার দুপুর পৌনে ১২টায় রাজশাহীর বিভাগীয় দ্রুত বিচার  ট্রাইব্যুনালের বিচারক গোলাম আহমেদ খলিলুর রহমান এ রায় দেন।

দণ্ডপ্রাপ্তরা হলেন- সাতক্ষীরা জেলার ইটাগাছা গ্রামের আব্দুর রহমান মাস্টারের ছেলে শফিউল্লাহ ওরফে তারেক ওরফে আবুল কালাম ও নওগাঁর সারকডাঙ্গা গ্রামের এলাকার হাজি আব্দুস সাত্তারের ছেলে শহিদুল্লাহ ওরফে মাহবুব।

রায় ঘোষণার সময় দুই আসামি কাঠগড়ায় উপস্থিত ছিলেন।

আদালত সূত্রে জানা গেছে, ২০১০ সালের ২৮ জানুয়ারি চাঞ্চল্যকর এ হত্যা মামলার রায়ে তাদের মৃত্যুদণ্ড ও ৫ হাজার টাকা অর্থদণ্ড দিয়েছিলেন আদালত।

এ ছাড়া মামলার অপর ৬ আসামির বিরুদ্ধে অভিযোগ প্রমাণিত না হওয়ায় তাদের বেকসুর খালাস দেয়া হয়।

দণ্ডপ্রাপ্ত আসামিরা রায়ের বিরুদ্ধে হাইকোর্টে আপিল করলে মামলাটি পুনঃবিচারের জন্য রাজশাহী বিভাগীয় দ্রুত বিচার  ট্রাইব্যুনালে পাঠানো হয়।

রায়ের পর দ্রুত বিচার ট্রাইব্যুনালের পিপি এন্তাজুল হক বাবু  বলেন, আগের রায়ে কিছু ক্রুটি থাকায় হাইকোর্ট মামলাটি বিভাগীয় ট্রাইব্যুনালে পাঠান। ক্রুটি সংশোধন করে বুধবার আদালত যে রায় দিয়েছেন, তাতে আমরা খুশি। এ রায় দেশে জঙ্গিবাদ দমনে ভূমিকা রাখবে।

তিনি আরও জানান, মামলাটি ট্রাইব্যুনালে আসার পর ঘটনার প্রত্যক্ষদর্শী দুই সাক্ষীর সাক্ষ্যগ্রহণ করা হয়।

উল্লেখ্য, ২০০৪ সালের ২৪ ডিসেম্বর ভোরে বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাস সংলগ্ন বিনোদপুর এলাকার নিজরে বাসা থেকে ৩০০ গজ দূরে আসামিরা ছুরিকাঘাত ও শ্বাসরোধে অধ্যাপক ড. ইউনুসকে হত্যা করে।

এ ঘটনায় ড. ইউনুসের ভাই আব্দুল হালিম বাদী হয়ে ওইদিনই নগরীর মতিহার থানায় একটি হত্যা মামলা দায়ের করেন।

২০০৭ সালের ১০ সেপ্টেম্বর তদন্ত শেষে ৮ জনের বিরুদ্ধে অভিযোগপত্র দাখিল করে পুলিশ। ২০০৯ সালের ২৫ আগস্ট মামলাটি বিচারের জন্য দ্রুত বিচার ট্রাইব্যুনালে পাঠানো হয়। তখন এই মামলায় ২৬ জনের সাক্ষ্য নেয়া হয়।