Sheersha Media

ব্রেকিং নিউজ

দুপুর ১২:৪৯ ঢাকা, বৃহস্পতিবার  ১৫ই নভেম্বর ২০১৮ ইং

অধ্যাপকের বিরুদ্বে ছাত্রীকে যৌন হয়রানির অভিযোগ

রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয় (রাবি) শিক্ষক সমিতির সভাপতির বিরুদ্ধে নিজ বিভাগের এক ছাত্রীকে যৌন হয়রানির অভিযোগ উঠেছে। অভিযুক্ত শিক্ষক কামরুল হাসান মজুমদার বিশ্ববিদ্যালয়ের ভূ-তত্ত্ব ও খনিবিদ্যা বিভাগের অধ্যাপক। ছাত্রীর এ অভিযোগের পরিপ্রেক্ষিতে বিষয়টি তদন্ত করছে বিশ্ববিদ্যালয় যৌন হয়রানি ও নিপীড়ন নিরোধ কমিটি। এছাড়া অভিযোগের প্রাথমিক পর্যালোচনা শেষে ইতোমধ্যে কামরুল হাসান মজুমদারকে বিভাগের পরীক্ষা ও ছাত্রীদের গবেষণা সংক্রান্ত সকল কার্যক্রম থেকে অব্যাহতি দেয়া হয়েছে।

বিভাগের একটি সূত্রের দেয়া তথ্য মতে, গত অক্টোবরের শেষের দিকে ভূ-তত্ব ও খনিবিদ্যা বিভাগের প্রথম বর্ষের এক ছাত্রী কামরুল হাসানের বিরুদ্ধে যৌন হয়রানির বিষয়ে লিখিত অভিযোগ দেন বিশ্ববিদ্যালয়ের যৌন হয়রানি ও নিপীড়ন নিরোধ কমিটির কাছে।

কমিটি সূত্রে জানা গেছে, কামরুল হাসান মুঠোফোনে ছাত্রীটিকে একাধিকার আপত্তিকর প্রস্তাব দিয়েছিলো। প্রস্তাবে রাজি হলে বিভাগে ভালো ফলাফলের নিশ্চয়তাসহ শিক্ষক বানিয়ে দেয়ারও লোভ দেখান তিনি। কিন্তু ওই ছাত্রী এই ঘৃর্ণ প্রস্তাব প্রত্যাখান করেন।

ওই ছাত্রী অভিযোগ করেন, প্রথমদিকে তিনি শিক্ষককে নানাভাবে নিবৃত করার চেষ্টা করেন। কিন্তু শিক্ষক দিন দিন যৌন হয়রানির মাত্রা বাড়াতে থাকেন এবং কুপ্রস্তাব দিতে থাকেন। পরে উপায় না দেখে তিনি বিশ্ববিদ্যালয়ের যৌন হয়রানি ও নিপীড়ন নিরোধ কমিটির কাছে লিখিত অভিযোগ দেন তিনি।

ছাত্রীর অভিযোগের প্রাথমিক পর্যালোচনা শেষে প্রমাণসহ তা ভূ-তত্ব ও খনিবিদ্যা বিভাগীয় সভাপতির কাছে পাঠানো হয়। অভিযোগের অনুলিপি পেয়ে গত ৩০ নভেম্বর বিভাগের একাডেমিক কমিটির সভা ডাকা হয়। সভায় অধ্যাপক কামরুল হাসান মজুমদারকে বিভাগের পরীক্ষা ও ছাত্রীদের গবেষণার তত্ত্ববাধানসহ সকল কার্যক্রম থেকে তাকে অব্যাহতি দেয়ার সিদ্ধান্ত নেয়া হয়। সিদ্ধান্ত অনুযায়ী তিনি শুধু ক্লাশে অংশগ্রহণ করতে পারবেন।

এব্যাপারে বিশ্ববিদ্যালয়ের যৌন হয়রানি ও নিপীড়ন নিরোধ কমিটির সভাপতি ও মনোবিজ্ঞান বিভাগের অধ্যাপক মাহবুবা কানিজ কেয়া বলেন, অভিযোগটি পাওয়ার পর সেটির সত্যতা পর্যালোচনা করা হয়েছে। এ নিয়ে এখনো তদন্ত চলছে।