স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ মন্ত্রী জাহিদ মালেক
স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ মন্ত্রী জাহিদ মালেক, ফাইল ফটো

অগ্নিকান্ডে আহতদের চিকিৎসা খরচ সরকারের : স্বাস্থ্যমন্ত্রী

পুরান ঢাকার চকবাজারে ভয়াবাহ অগ্নিকান্ডে আহতদের চিকিৎসার সকল খরচ সরকার বহন করবে বলে জানিয়েছেন স্বাস্থ্য ও পরিবারকল্যাণ মন্ত্রী জাহিদ মালেক।

আজ বৃহস্পতিবার আন্তর্জাতিক শহীদ দিবস ও মাতৃভাষা দিবস উপলক্ষে সিলেটে কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে শহীদদের প্রতি ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা নিবেদন শেষে উপস্থিত সাংবাদিকদের তিনি এসব কথা বলেন তিনি।

ঢাকায় চিকিৎসকদের ছুটি বাতিল করা হয়েছে জানিয়ে জাহিদ মালেক বলেন, চিকিৎসকরা দগ্ধদের আন্তরিকতার সঙ্গে চিকিৎসা দিচ্ছেন। বর্তমানে যারা হাসপাতালে চিকিৎসাধীন আছেন তাদের অনেকের অবস্থা ভাল না। আমরা চেষ্টা করছি তাদের যথাযথ চিকিৎসার মাধ্যমে বাঁচিয়ে রাখার। চিকিৎসকরা সর্বোচ্চ দিয়ে চেষ্টা করছেন। সকলের দোয়া প্রয়োজন।

এরপর মন্ত্রী নগরের চৌহাট্টা এলাকায় সিভিল সার্জন কার্যালয়ের একটি ভবনে সিলেট মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্যের অস্থায়ী কার্যালয় উদ্বোধন করেন এবং পরে সিলেট মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রস্তাবিত জায়গা পরিদর্শনে যান।

এ সময়ে স্বাস্থ্যমন্ত্রী বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে স্বাস্থ্যসেবা খাতে দেশ এগিয়ে যাচ্ছে। আগে দেশে মাত্র একটি মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয় ছিল। গত পাঁচ বছরেই আরও তিনটি মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয় নির্মাণের অনুমোদন দিয়েছে সরকার।

তিনি বলেন, ১৬ কোটি মানুষের স্বাস্থ্যসেবা নিশ্চিত করতে সরকার বদ্ধ পরিকর। এজন্য দেশের প্রতিটি জেলায় একটি করে মেডিকেল কলেজ এবং প্রতিটি বিভাগে একটি করে মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয় স্থাপন করা হবে।

জাহিদ মালেক বলেন, আগে যেখানে মেডিকেল যন্ত্রপাতি কম ছিল সেখানে আমরা অনেক ভারী-ভারী এবং উন্নত প্রযুক্তিসম্পন্ন যন্ত্রপাতি সংযোজন করেছি। স্বাস্থ্যসেবা খাতে লোকবল তৈরি হয়েছে। দেশে দুই শতাধিক মেডিকেল কলেজ, ডেন্টাল কলেজ, নার্সিং হোমসহ সরকারি ও বেসরকারি প্রতিষ্ঠান রয়েছে সহস্রাধিক। তবে শুধু ‘ব্যাঙের ছাতার মতো গজিয়ে উঠা’ প্রতিষ্ঠান থাকলেই চলবে না সেগুলোর মানোন্নয়ন প্রয়োজন। বর্তমান সরকার স্বাস্থ্যসেবা খাতের মানোন্নয়নে কাজ করে যাচ্ছে।

স্বাস্থ্যমন্ত্রী বলেন, মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয় কিংবা যেকোনো প্রতিষ্ঠানের অনুমোদন নেয়া সহজ কিন্তু বাস্তবায়ন করা কঠিন কাজ। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা আমার ওপর, আমাদের ওপর আস্থা রেখেছেন। তার আস্থার প্রতিদান দিতে আমরা সর্বাত্মক চেষ্টা চালিয়ে যাবো।

এ সময় স্বাস্থ্য ও পরিবারকল্যাণ বিভাগের সচিব জি এম সালেহ উদ্দিন, সিলেট মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ের ভাইস চ্যান্সেলর ডা. মোর্শেদ আহমদ চৌধুরী, স্বাস্থ্য অধিদফতরের অতিরিক্ত মহাপরিচালক ডা. এনায়েত হোসেন, সিলেট জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক শফিকুর রহমান চৌধুরী, মহানগর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আসাদ উদ্দিন আহমদ প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।